৩ ফুট লম্বা পুরুষাঙ্গ তরুণের দুর্বিষহ জীবন

স্বাস্থ্য

অন্য দশ জনের মতোই বেড়ে ওঠতে ছিল হোরেস ওইটি অপিও। মাত্র ৫ বছর বয়সে হোরেস তার বাবা-মা হারিয়েছে। এরপর নানীর কাছে থেকেই বড় হয়েছে তারা দুই ভাই। ৯ বছর বয়স পর্যন্ত হোরেস অন্য সব বালকদের মতোই স্বভাবিক ছিল।

কিন্তু ১০ বছরে পা দিতেই তার গোপনাঙ্গের চামড়ার ভেতর পানি জমতে দেখা দেয়। এর পর দিনে দিন তা বেড়ে গিয়ে বিশাল আকার ধারণ করে।

অতঃপর ২০ বছর শরীরে বিশাল আকৃতির প্রায় ১১ পাউন্ড ওজনের অণ্ডকোষ এবং এবং ৩ ফুট লম্বা পুরুষাঙ্গ নিয়ে জীবনযাপন করতে হয়েছে তাকে। শরীরে এমন অসঙ্গতির কারনে দুর্বিষহ জীবন যাপন করতে হয়েছে তাকে।

অর্থের অভাবে এতদিন নিজের চিকিৎসা করাতে পারেনি কেনিয়া’য় বসবাসকারী এই হতভাগা তরুণ। কিন্তু ফেসবুকের কল্যাণে তার জীবন যেন পাল্টে গেল। সম্প্রতি হোরেসের এক প্রতিবেশি তার বেশকিছু ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করে, একদিন পার হতে না হতেই ছবিগুলো ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে। ফেসবুকে হরেসের ছবি দেখে কিশামু কাউন্টি গভর্নরের স্ত্রী অলিভিয়া রাঙ্গুমা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে হরেসের সার্জারির ব্যবস্থা করে দেন।

জানা যায়, হোরেস এখন পুরোপুরি সুস্থ আছেন।