WiFi ব্যবহার করেন?

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বেলজিয়াম কে ইউ ল্যুভেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ম্যাথু ফানহোয়েফ ও ফ্রাঙ্ক পাইসেনস সোমবার তাঁদের ব্লগে এই দাবি করেছেন, ওয়াইফাই-এর পাসওয়ার্ড দেওয়া থাকলেও তা সুরক্ষিত নয়। তাঁদের দাবি, সে সুরক্ষা ভেদ করেও সাইবারহানা হতে পারে।  

সাইবারহানার কবলে পড়তে পারে ওয়াইফাই সিকিউরিটি প্রোটোকল ‘ডব্লিউ পি এ-২’। যদিও বিশেষজ্ঞরা এখনও এ ধরনের অ্যাটাকের কোনও উদাহরণ খুঁজে পাননি। তবে অ্যান্ড্রয়েড ভেন্ডররা বিষয়টিকে বেশ গুরুত্ব সহকারেই দেখাছেন।  

গবেষকদের দাবি, সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস-সহ ৪১ শতাংশ ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে সাইবার হানা হতে পারে। অ্যান্ড্রয়েড ভেন্ডররা ওয়াইফাই-এর সুরক্ষা বাড়ানো নিয়েও ভাবনা-চিন্তা শুরু করে দিয়েছেন।  

সাইবার বিশেষজ্ঞরা অবশ্য গবেষকদের এই দাবি নিয়ে বেশ সন্দিহান। তাঁদের মতে, প্রাইভেট কানেকশনে হ্যাকাররা-হানার ঝুঁকি বেশ কম।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, এ নিয়ে সুরক্ষাকবচ তৈরি না হওয়া পর্যন্ত ওয়াইফাই-এর বদলে ল্যান ব্যবহার করা যেতে পারে। তাতে হ্যাকারদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।

বিশ্ব জুড়ে ওয়াইফাই-এর সিকিউরিটির মান রক্ষা করার দায়িত্ব রয়েছে ওয়াইফাই অ্যালায়েন্স-এর। তারা অবশ্য আশ্বাস দিয়েছেন, ওয়াইফাই-এর সিকিউরিটিতে কোনও সাইবারহানার উদাহরণ খুঁজে পায়নি।  

সাইবার বিশেষজ্ঞ জিতেন জৈন বলেন, “হিডেন মোড-এ ওয়াইফাই ব্যবহার করা যেতে পারে। তাতে সাইবারহানার আশঙ্কা কমবে।” এ ছাড়া, ল্যান ব্যবহারেরও জোর দিয়েছেন তিনি।

হ্যাকারদের হাত থেকে বাঁচতে লিনাক্স ব্রাউজার বা অ্যান্ড্রয়েডের ৬.০ ভার্সন ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন ম্যাথু ফানহোয়েফ।

সূত্র: সি.নেট